আসুন-আমরা-রোবট-বানাই,-জেনে-নেই-কি-দিয়ে-তৈরি-করা-হয়-রোবট।-Let's-make-a-robot,-what-a-robot-is-made-of

আসুন আমরা রোবট বানাই, জেনে নেই কি দিয়ে তৈরি করা হয় রোবট। Let’s make a robot, what a robot is made of.

রোবট আমরা প্রায়ই মুভিতে দেখে থাকি । তা দেখে অনেকে নিজেরাই রোবট বানানোর স্বপ্ন দেখি । আমরা হয় তো প্রাই সবাই ছোট বেলায় আমাদের খেলনা গাড়ি ভেঙ্গে নিজের মত করে কিছু বানানর চেস্টা করতাম। এমন কি আমরা অনেকেই সে কাজে সফল হয়েছি । আবার অনেকেই রোবট বানানর চেস্টা করতাম ।

আসুন আমরা রোবট বানাই, জেনে নেই কি দিয়ে তৈরি করা হয় রোবট। Let’s make a robot, what a robot is made of.

আসুন-আমরা-রোবট-বানাই,-জেনে-নেই-কি-দিয়ে-তৈরি-করা-হয়-রোবট।-Let's-make-a-robot,-what-a-robot-is-made-of

সবাইকে স্বাগতম muktokosh.comবাংলাদেশের অন্যতম টেকব্লগ আসা করি সবাই ভালো আছেন। আপনারা হয়তো টাইটেল দেখে বুঝে গিয়েছেন আমরা কি নিয়ে কথা বলতে চলেছি ।  তাহলে চলুন দেরি না করে চলে যাই আমাদের আলোচ্য বিষয়ে ।

রোবট সম্পর্কে কিছু কথা – Something about robots

আমরা অনেকেই ভাবি রোবট কি ভাবে তৈরি করে আর কি ভাবেই বা কাজ করে…….!

আসুন আজ আমরা রোবট বানানো নিয়ে কিছু শিখি ……

আপনি যদি রোবটিক্স ভালমত শেখেন, তাহলে হয়তো একদিন সত্যি সত্যিই সিনেমার টারমিনেটর এর মত রোবট বানিয়ে ফেলতে পারবেন! কিন্তু সেজন্য আপনাকে প্রথমে একটি ছোট রোবট বানিয়ে রোবটিক্স এর জগতে প্রবেশ করতে হবে। আজকে আমরা তেমনি একটি রোবট তৈরির কৌশল নিয়ে জানবো।

 

আসুন আমরা প্রথমে জেনে নেই রোবট কি ভাবে কাজ করে ?

রোবট হলো কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত একটি স্বয়ংক্রিয় ব্যবস্থা, যা মানুষ যেভাবে কাজ করে ঠিক সেই ভাবেই কাজ করতে পারে অথবা এর কাজের ধরন দেখে মনে হবে এর কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা আছে। … সহজ ভাষায় বলা যায়, যে যন্ত্র নিজে নিজে মানুষের কাজে সাহায্য করে এবং নানাবিধ কাজে মানুষের বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হয়, তাই রোবট।

সাধারণত যে কোন রোবটেই কন্ট্রোল সিস্টেম হিসেবে মাইক্রোকন্ট্রোলার বা মাইক্রোপ্রসেসর ব্যবহার করা হয়। এছাড়া চারপাশের পরিবেশ পর্যবেক্ষণ করার জন্য এবং নির্দিষ্ট কিছু বিষয় পরিবর্তন বিবেচনা করার জন্য বিভিন্ন ধরনের সেন্সর ব্যবহার করা হয়। এছাড়া বাহ্যিক পরিবেশ থেকে প্রাপ্ত এনালগ সিগন্যালকে ডিজিটাল সিগন্যালে রূপান্তর করার জন্য কনভার্টার ব্যবহার করা হয়, কারণ মাইক্রোকন্ট্রোলার বা মাইক্রোপ্রসেসর শুধুমাত্র ডিজিটাল সিগন্যাল প্রসেস করতে পারে। একইভাবে প্রসেসিং শেষে এনালগ ডিভাইসকে পরিচালনার জন্য সিগন্যাল তৈরি করতে কনভার্টার ব্যবহার করা হয়। কোন একটা কাজ কখন করতে হবে, কতক্ষণ করতে হবে বিষয় সমূহ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য টাইমার – কাউন্টার থাকে। বিভিন্ন মুভমেন্ট এবং পজিশন নিয়ন্ত্রণের জন্য মটর ব্যবহার করা। মটর সমূহকে পরিচালনা করার জন্য ড্রাইভার ম্যাকানিজম ব্যবহার করা হয়। অন্যান্য ডিভাইসের সাথে যোগাযোগ করার জন্য বিভিন্ন ধরনের কমিউনিকেশন সিস্টেম যেমন আর এফ কমিউনিকেশন, ব্লুটুথ কমিউনিকেশন, ওয়াই ফাই কমিউনিকেশন, ইথারনেট কমিউনিকেশন, জি পি এস, জি এস এম ইত্যাদি।

 

রোবটের গুরুত্বপূর্ন ৫টি উপাদান নিম্নে দেওয়া হলো:- Below are 5 important components of a robot

 

১. পাওয়ার সিস্টেম:Power system

একটি রোবট কাজ করার জন্য বিদ্যুৎ শক্তি প্রয়োজন। লেড এসিড ব্যাটারী দিয়ে রোবটের পাওয়ার দেওয়া হয়। এই ব্যাটারী আবার চার্য করা যায় অর্থাৎ এর ব্যাটারী রিচার্জেবল। তাই রোবটকে কাজ করানোর জন্য বিদ্যুৎ শক্তি সরবাহ করা বা ব্যাটারী ব্যবহার করা প্রয়োজন।

২. অ্যাকচুয়েটর:- Actuator

রোবট এর দেহের অভ্যন্তরে অ্যাকচুয়েটর নামে ছোট কতগুলো মোটর রয়েছে যেগুলো দ্বারা রোবটের হত-পা বা সম্পূর্ণ শারীরিক অঙ্গ-প্রতঙ্গ নাড়াচড়া করতে পারে। রোবটের অভ্যন্তরে যে মোটরসগুলো ব্যবহৃত হয় ডিসি মোটরস, স্টিপার মোটরস, সার্ভো মোটরস ইত্যাদি।

৩. অনুভূতি:- Feelings:

সেন্সর বা অনুভুতি হলো রোবট এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। অনুভূতি দ্বারা রোবটকে তার পরিবেশ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে থাকে। এই তথ্যটি রোবটের আচরণকে গাইড করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। ক্যামেরাগুলি একটি রোবটকে তার পরিবেশের চাক্ষুষ উপস্থাপনা তৈরি করার অনুমতি দেয়। এটি রোবটটিকে পরিবেশের এমন বৈশিষ্ট্যগুলি বিচার করতে সহায়তা করে যা কেবলমাত্র দৃষ্টি দ্বারা নির্ধারিত হতে পারে যেমন আকৃতি এবং রঙ এবং সেইসাথে অবজেক্টের আকার এবং দূরত্বের মতো অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ গুণাবলী নির্ধারণে সহায়তা করে।

রোবট এর হাত বা পা যেকোনো জায়গায় স্পর্শ করলে সেই জায়গা সম্পর্কে  রোবট যাবতীয় তথ্য দেওয়ার সামর্থ রাখে। সুতরাং এই সেন্সর সিস্টেমগুলি বাস্তব জগৎ থেকে ডিজিটাল বিশ্বে একটি প্রতিক্রিয়া সরবরাহ করে, যা প্রক্রিয়াজাত হয় এবং রোবট সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়।

৪. মস্তিষ্ক বা প্রসেসর:Brain or processor:

রোবটকে নিয়ন্ত্রন করার জন্য মস্তিষ্ক বা প্রসেরের ব্যবহার করা হয়। এটি রোবটের প্রধান নিয়ন্ত্রক সিস্টেম। রোবট এর অভ্যন্তরে উপস্থিত প্রতিটি ব্যবস্থা এবং কার্যকারিতা একটি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা হিসাবে কাজ করে। আপনি যে প্রোগ্রাম রোবট এর মস্তিষ্কে দিবেন রোবট ঠিক ঐভাবেই কাজ করবে।

৫. ম্যানিপিউলেশন:- Manipulation:

রোবট এর চারপাশের বস্তুগুলোর অবস্থান পরিবর্তন করা হলো ম্যানিপিউলেশন। অর্থৎ রোবটের হাত-পা দিয়ে এই যাবতীয় পরির্তন করে থাকে। এটি হাতের আঙ্গুল দিয়ে কোনো বস্তুকে ধরতে পারবে এবং পা ‍দিয়ে ডানে/বামে এবং সামনে-পিছনে যেতে পারবে।

 

আগামিতে আমরা আরো কিছু সম্পর্কে পর্যায়ক্রমে জানবো – So stay tuned with techtrech😊

 

Default image
nazmul islam
Articles: 6

Leave a Reply